ব্লগিং করে ইনকামের ৫ টি উপায়!

অনলাইন থেকে স্থানীভাবে প্যাসিভ ইনকাম করার একমাত্র সেরা ও জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে ব্লগিং, হ্যাঁ ইউটিউব থেকেও প্যাসিভ ইনকাম করা যায় তবে সেটা স্থায়ী না, কারণ যেকোনো সময় সেই চ্যানেল বন্ধ হয়ে যেতে পারে। আর ব্লগিং হচ্ছে আপনার নিজের সংস্থা এটা আপনি যতদিন চাইবেন ততদিন চালু রাখতে পারবেন। ব্লগিং করে ইনকাম করার অনেক গুলো উপায় বা মাধ্যম আছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে মনিটাইজ এছাড়াও আরো কিছু উপায় আছে, সেই উপায়নগুলো কি কি এবং কিভাবে ও কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন এই সমস্ত বিস্তারিত তথ্য নিয়ে আমার আজকের এই টিউটোরিয়াল।


ব্লগিং করে আয়,ব্লগিং কিভাবে শিখবো ব্লগিং করে আয়,ব্লগিং করে টাকা,ব্লগিং করে টাকা আয়,ব্লগিং করে অনলাইনে আয়,ব্লগিং করে অনলাইন থেকে আয়,ব্লগিং করে কিভাবে আয় করা যায়,ব্লগিং করে কি আয় করা সম্ভব



মনিটাইজ

বাংলা অথবা ইংরেজি নিউজ সাইট অথবা টিউটোরিয়াল টাইপ ওয়েবসাইট যেটাই হোকনা কেনো একটি ওয়েবসাইটের সিংহভাগ আয় বা ইনকাম আসে বিজ্ঞাপন থেকে। একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইটের অন্য নাম প্রচারনা সংস্থা, যার মাধ্যমে আপনি যেকোনো পণ্য পোডাক্ট বা সার্ভিসের প্রচারণা করতে পারেন খুব সহজেই, আর এটা কাজে লাগিয়ে আপনি গুগল এডসেন্স অথবা যেকোনো এড নেটওয়ার্কে পাবলিশার হয়ে জয়েন করে সেই কোম্পানির বিজ্ঞাপন শো  করাতে পারেন আপনার ওয়েবসাইটে যাকে বলে মনিটাইজেশন এবং আপনার সাইটে যদি ভালো পরিমান ভিজিটর থাকে তাহলে আপনি এই মনিটাইজের মাধ্যমে প্রতিমাসে ১০০-১০০০ ডলার ইনকাম করতে পারবেন।



অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

ব্লগিং করে ইনকাম করার দ্বিতীয় সেরা মাধ্যম হলো  অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, Amazon, Ali express, Shareasale, Nutriprofits, Click bank, Daraz, Bdshop সহ দেশি বিদেশি মিলিয়ে অসংখ্য অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্ক আছে এর মধ্যে যেকোনো একটাতে জয়েন করে আপনার ওয়েবসাইটে টপিক রিলেটেড পোডাক্ট সিলেক্ট করে সেই পোডাক্টের রিভিউ লিখে আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করে দেন, এরপর কেউ যদি সেই পোডাক্ট অর্ডার করে তাহলে আপনি পোডাক্টের দামের ৫% থেকে ৪০% পর্যন্ত কমিশন পাবেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ঠিক কত টাকা ইনকাম করা যাবে এই বিষয়ে কেউ সঠিক তথ্য দিতে পারবে না, আপনার প্রোমোট রিভিউ করা পোডাক্ট যত বেশি বিক্রি হবে আপনার ইনকামও তত বেশি হবে।



স্পন্সরশীপ

সত্যি কথা বলতে আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ার তখনই সাকসেস হবে যখন আপনি কোনো কোম্পানি বা সংস্থা থেকে স্পন্সরশীপ পাবেন। এমন অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা এডসেন্স বেশি ইনকাম করে থাকেন স্পন্সরশীপের মাধ্যমে। আর আপনাকে কোনো কোম্পানি বা সংস্থা তখনই স্পন্সর দিবেন যখন আপনার ওয়েবসাইটের পোষ্ট বা টিউটোরিয়াল গুলো গুগলে র‌্যাংক হবে এবং আপনার ওয়েবসাইটে ভালো ট্রাফিক থাকবে।



রেফাল পোগ্রাম

আমি গত ৩ বছর আগে টেক টিউনে পিটিসি জব সম্পর্কে বিস্তারিত লিখে একটি পোষ্ট করেছিলাম যেকানে আমার রেফারেল লিংক যুক্ত করে দিয়েছিলাম, আর সেই রেফারেলে এখন পর্যন্ত প্রায় ৫০০+ মানুষ রেজিষ্ট্রেশন করেছেন যার মধ্যে প্রায় ৩০০ মানুষ কাজ করছেন, তাদের কাজ করার কিছু অংশ আমি রেফারেল কমিশন পাচ্ছি এবং পাবো। তাই আপনার যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে তাহলে আপনি সেখানে পিটিসি, লিংক শর্টনার অথবা মাইক্রো জব সাইট নিয়ে সুন্দর একটা আর্টিকেল লিখে পাবলিশ করে দিবেন যেখানে আপনার রেফারেল লিংক থাকবে। তারপর আপনি যদি সেই পিটিসি সাইটে কাজ নাও করেন তাহলেও আপনার ওয়েবসাইটের টিউটরিয়াল দেখে যারা আপনার রেফারেল লিংকে ক্লিক করে জযেন করেছে তারা কাজ করলে তাদের রেফার মিশন আপনি লাইফটাইম পাবেন।



সার্ভিস সেল

আপনার যদি কোনো সার্ভিস থাকে অথবা আপনার যদি কোনো কাজের দক্ষতা থাকে তাহলে সেই বিষয়ে একটি আর্টিকেল লিখে আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করবেন, তারপর এই সার্ভিস টি যার দরকার সে আপনার সাথে যোগাযোগ করে আপনার সার্ভিস টি নিবে এবং আপনার ইনকাম হবে। যেমন আমি লেখালেখির পাশে ব্যাকলিংকের কাজ জানি এখন আমি যদি এই আর্টিকেল বলে দেই যে আপনার যদি কোনো ওয়েবসাই থাকে তাহলে আমার মাধ্যমে গেস্ট পোস্টিং করিয়ে আপনার ওয়েবসাইটে জন্য ব্যাংলিংক নিতে পারবেন, বিনিময়ে আমাকে কিছু পে করবেন।


শেষ করছি তার আগে বলে নেই আপনি যদি নিয়মিত আমাদের সকল আপডেট আপনার ফেসবুক নিউজফিডে পেতে চান তাহলে যুক্ত থাকতে পারেন আমাদের ফেসবুক পেজে অথবা গুগল নিউজে।


Post a Comment

0 Comments